Home » অন্যান্য >> » ভালো কর্মী হতে হলে
office

ভালো কর্মী হতে হলে

officeস্কুল-কলেজের গন্ডি পেরিয়ে আমরা যখন কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করি তখন নিজেদের আচরণে আনতে হয় অনেক পরিবর্তন। অফিস মানে নতুন জায়গা, নতুন পরিবেশ। প্রত্যেক অফিসের নিজস্ব সংস্কৃতি থাকে সেগুলো আপনাকে মেনে চলতেই হবে। তাছাড়া বাড়িতে আপনি যেভাবে থাকেন সেভাবে অফিসে ব্যবহার করা যায় না। অফিস হলো ‘প্রফেশনাল ওয়ার্ল্ড’। আর তাই আপনার আচরণও হওয়া উচিত মানানসই। শুধু কাজ জানলেই হবে না, জানতে হবে কেমন হওয়া উচিত বস এবং বাকি সহকর্মীদের প্রতি আপনার দৃষ্টিভঙ্গি। একজন ভালো কর্মী হয়ে ওঠার জন্য রইল কিছু টিপস।

যা করবেন

– অফিসের সময় মেনে চলুন। সব সময় অফিসে সময় মতো পৌঁছান। পারলে সময়ের আগে পৌঁছতে চেষ্টা করুন। যখন অফিস শেষ হওয়ার কথা, তখনই বের হোন। কোনো বিশেষ কারণে যদি আগে বের হতে হয় অথবা দেরি করে আসতে হয় তাহলে ডিপার্টমেন্টকে আগে থেকে জানিয়ে দেবেন।

– অকারণে অফিস ফাঁকি দেবেন না। না আসতে পারলে তা অবশ্যই অফিসে জানিয়ে দেবেন।

– আপনার বসের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন। আপনি কী কাজ করছেন তা অবশ্যই তাকে জানিয়ে রাখবেন। আপনাকে যদি কোনো কাজ দেয়া হয় তাহলে অবশ্যই তা ডেডলাইনের মধ্যে শেষ করুন।

– সহকর্মীদের সঙ্গে কো-অপারেট করবেন। সবার সাথে ভদ্রভাবে কথা বলুন। কর্মক্ষেত্রে কোনোরকম সমস্যা হলে সিনিয়রদের সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন। সহকর্মীরা যদি কোনোরকম সাহায্য চান, যতটা পারবেন সাহায্য করবেন। অধস্তন কর্মচারীদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করুন।

– খেয়াল রাখবেন, অফিসের পোশাক এবং জুতা যেন উপযুক্ত হয়। সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয়ে অফিসে যাবেন।

– অফিসের গোপনীয় তথ্যাবলী, কাজের দরকারি কাগজপত্র সযত্নে রাখুন।

যা করবেন না

– অফিসে যদি ফর্মাল পোশাক পরার নিয়ম থাকে তাহলে জিন্স, টি শার্ট জাতীয় পোশাক পরবেন না।

– কাজ সময়মতো শেষ করতে না পারলে বাজে অজুহাত দেবেন না।

– অফিসে থাকাকালীন কানে হেডফোন গুঁজে রাখবেন না। খুব বেশি ব্যক্তিগত টেলিফোন কল করবেন না।

– কোনো সহকর্মীর কাজের প্রতি অবজ্ঞা দেখাবেন না। আপনি যতই ভালো কাজ জানুন না কেন, অফিসে অহংকারী মনোভাব নিয়ে থাকবেন না।

– কারো সাথে যদি কোনোরকম মতের অমিল হয়, তা ব্যক্তিগতভাবে নিয়ে ফেলবেন না। অযথা মাথা গরম করে অশালীন মন্তব্য করবেন না।

– মেজাজ যদি খারাপ থাকে তার প্রভাব কর্মক্ষেত্রে পড়তে দেবেন না।

– অফিস, বস এবং সহকর্মীদের নামে নিন্দা করবেন না।

– সহকর্মীদের অনুমতি না নিয়ে তাদের জিনিসপত্র, দরকারি কাগজপত্র ঘাঁটাঘাঁটি করবেন না।

মিটিং-এ আচরণ

– মিটিংয়ে দেরি করে পৌঁছবেন না। কোনো কারণে দেরি হলে আগে থেকে জানিয়ে দেবেন। সব সময় মিটিংয়ে উপস্থিত থাকবেন।

– মিটিংয়ে যখন কেউ কোনো বক্তব্য রাখবেন, মন দিয়ে শুনবেন। কোনোরকম বাধাবিঘ্নের সৃষ্টি করবেন না। আপনার কিছু বলার থাকলে চেয়ারপার্সনের অনুমতি নিয়ে বক্তব্য রাখুন।

– মিটিংয়ের মধ্যে মোবাইল ফোন সাইলেন্ট মোডে অথবা বন্ধ করে রাখুন।

– যতক্ষণ না মিটিং শেষ হচ্ছে উঠে চলে যাবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>