Home » নির্বাচনী » অফিসে কাজের ফাঁকে চটজলদি রূপচর্চা!
কাজের ফাঁকে ঝটপট একটু রূপচর্চা
কাজের ফাঁকে ঝটপট একটু রূপচর্চা

অফিসে কাজের ফাঁকে চটজলদি রূপচর্চা!

অফিসে কাজের চাপ তার উপর অফিসের বাইরেও মাঝে মাঝে যেতে হচ্ছে। এই ব্যস্ততার মাঝে নিজের রূপচর্চার কথা ক’জনেরই বা মনে থাকে। এতকিছুর মাঝে খানিকটা অবসরে নিজেকে একটু সুন্দর রাখার জন্য মনোযোগী হলে ক্ষতি কী। কাজের ফাঁকে একটু সময় করে যদি আমরা ফ্রেশ হয়ে নিই তাহলে দেখতে যেমন ভালো লাগে, মনটাও থাকে ফুরফুরে। অফিসে চটজলদি কীভাবে সাজগোজ করবেন তা নিয়ে আজকের আয়োজন।

বিউটি এক্সপার্টদের মতে দিনের বড় একটা সময় যেহেতু অফিসেই কেটে যায় সে কারণে অফিসে বসেই সেরে নেওয়া উচিত ত্বক ও রূপের যত্ন।এ কথাও সত্যি যে, চাইলে অফিসে বসেই এক খণ্ড অবসর বের করে নেওয়া সম্ভব। যার পুরোটাই নির্ভর করে নিজের মাইন্ড সেটআপের উপর। একবার মাইন্ড সেটআপ করে নিলে দেখা যাবে ব্যাপারটা রুটিন ওয়ার্কের মতো হয়ে গেছে। আর রূপচর্চার ব্যাপারটা যে খুব কঠিন বা সময় সাপেক্ষ তা কিন্তু নয়। খুব অল্প সময়ে নিজেকে রিফ্রেশ করে নেওয়া সম্ভব।

তবে এর জন্য সঙ্গে প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে হবে। যেমন—ফেসওয়াশ, সানস্ক্রিন, টিস্যু এবং প্রয়োজনীয় কসমেটিকস। কসমেটিকসগুলো ব্যাগেই রাখতে পারেন। তবে অন্য জিনিসগুলো একটা ছোট বক্সে ভরে অফিসে আপনার নিজস্ব লকারে রেখে দিন। সময়-সুযোগ বুঝে সেগুলো ব্যবহার করুন, অফিসে সাধারণত এসির ভেতর থাকতে হয়। এতে ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ হয় বেশি। আর তৈলাক্ত ত্বক আরও বেশি চিটচিটে হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে সুযোগ পেলে ঠাণ্ডা পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন। আর মুখ তেলতেলে হলে টিস্যু দিয়ে মুখ মুছে নেবেন। একটা ছোট আয়না সবসময় সঙ্গে রাখুন। মাঝে মাঝে আয়নায় দেখুন আপনার মেকআপ ঠিক আছে কি না। হালকা একটু মেকআপ করেই সবাই ঘর থেকে বের হয়। তারপরও অফিস দূরে হলে জার্নিতে মেকআপ নষ্ট হয়ে যায়। তাই অফিসে ঢুকেই একটু ফ্রেশ হয়ে নেওয়া ভালো। সম্ভব হলে টিস্যু দিয়ে মুখ মুছে হালকা পাউডার বুলিয়ে নিন। এসির মধ্যে থাকলে শুষ্ক ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যায়। তাই এক ফাঁকে কটন বলে গোলাপ জল লাগিয়ে মুখটা মুছে ফেলুন। অনেক ফ্রেশ ও সতেজ লাগবে।

এসিতে থাকতে থাকতে ঠোঁট শুকিয়ে যায়। তাই সম্ভব হলে মাঝে দু’একবার লিপস্টিক মুছে নতুন করে লাগান। আর ব্যাগে লিপগ্লস রাখুন। কিছুক্ষণ পর পর হালকা একটু লিপগ্লস লাগিয়ে নিন। ফ্রেশ দেখাবে। অফিসের উদ্দেশ্যে বের হওয়ার আগে যেমন সানস্ক্রিন লাগিয়েছিলেন, তেমনি অফিসের কাজে বাইরে বের হতে হলে আবার লাগান। ভাবতে পারেন, একবার তো লাগিয়েছি। আসলে এটা ২-৩ ঘণ্টার বেশি কাজ করে না। তাই তিন ঘণ্টা অন্তর অন্তর লাগানোই ভালো। বিশেষ করে যাদের ঘোরাঘুরির মধ্যে থাকতে হয়।
টিপস
♦ সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার সময় বেসিক একটা মেকআপ সবাই করে থাকে। সেই বেজ মেকআপ ঠিক রাখতে হলে বার বার মুখে হাত দেওয়া যাবে না।
♦ ঠিক তেমনি ভাবে বারবার চুলে হাত দেওয়া উচিত নয়। এতে করে চুলের বাউন্সি ভাব নষ্ট হয়ে।
♦ দিনের বেশির ভাগ সময় যেহেতু এসির মধ্যে কাজ করতে হয় সেহেতু তৈলাক্ত ত্বক আরও বেশি তৈলাক্ত হয়ে পড়ে। এ কারণে হাতের কাছে সবসময় টিস্যু রাখতে হবে। তবে ওয়েট টিস্যু কখনই নয়।rupcare_office makeup2
♦ আবার অন্যদিকে শুষ্ক ত্বক আরও বেশি ড্রাই বা শুষ্ক হয়ে যায়। তাই মাঝে মধ্যেই টোনার স্প্রে করা উচিত।
♦ কাজের ফাঁকে মাঝেমধ্যেই ঠোঁটে ময়েশ্চারাইজ গ্লস ব্যবহার করা উচিত। এতে ঠোঁট ফাটবে না।
♦ হাত ধোয়ার পর হ্যান্ড লোশন লাগিয়ে নিতে হবে। তা না হলে ত্বক রুক্ষ হয়ে যাবে।
♦ অফিসে থাকা অবস্থায় দেড় থেকে দু লিটার পানি পান করা উচিত। এতে করে ত্বক ভালো থাকবে।
এ কাজগুলো হাঁটতে চলতেই করা যায়। খুব বেশি টেনস নেওয়ার প্রয়োজন নেই। সারাদিন সতেজ থাকাই কাম্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>